November 30, 2022, 5:43 pm

নারায়ণগঞ্জে প্রকৃত আসামী আড়াল করে টাকার বিনিময়ে ভুয়া আসামীর হাজতবাস

ষ্টাফ রিপোর্টার : অবশেষে ধরা খেলেন মাদক মামলার ছয় মাসের কারাদন্ড প্রাপ্ত আসামি জাকির ওরফে সোহেল ওরফে গাজী। টাকার বিনিময়ে ভুয়া আসামি জেল হাজতে পাঠিয়েও তার শেষ রক্ষা হলো না। বন্দর থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছেন।
জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর থানাধীন নবীগঞ্জ নূরবাগ এলাকার মৃত সামাদ মিয়ার ছেলে জাকির ওরফে সোহেল ওরফে গাজীকে নারায়ণগঞ্জ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দ্বিতীয় আদালতের বিচারক শামসুর রহমান বিগত ১০ আগস্ট ২০২২ তারিখে ১৯৯০ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ১৯ (১ ) এর ৯ (ক ) ধারায় ২০ পিচ ইয়াবা রাখার অভিযোগে ছয় মাসের সাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন। সুচতুর আসামি এই সাজা থেকে নিজেকে আড়াল করার জন্য নিজের নাম ঠিকানা পরিচয়ে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর থানাধীন কদম রসুল এলাকার আলাউদ্দিনের পুত্র জুয়েলকে বিগত ১২ সেপ্টেম্বর ২০২২ ইংরেজি তারিখে ওই একই আদালতে আপিলের শর্তে আত্মসমর্পণ করে জামিনের প্রার্থনা করেন। বিজ্ঞ আদালত শুনানি শেষে আসামিকে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।
এদিকে,নারায়ণগঞ্জ জেল কর্তৃপক্ষ কারাবন্দীদের ভর্তি রেজিস্টার যাচাই-বাছাই করে দেখেন যে,বিগত ২১ এপ্রিল ২০১৭ ইংরেজি তারিখে সেশন মামলা নম্বর ১৭১/১৩ (বন্দর থানার মামলা নং ১১ (২) ১২) মামলায় জুয়েল নাম পরিচয়ে সে জেল হাজতে আটক ছিল। জেল কর্তৃপক্ষের সে প্রকৃত আসামি নয় সন্দেহ হলে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে সত্য ঘটনা স্বীকার করে এবং প্রকৃত পরিচয় প্রকাশ করে।এ ব্যাপারে জেল কর্তৃপক্ষ একটি প্রতিবেদন আকারে গত ১৫ সেপ্টেম্বর ২৬৪৬/২২ নম্বর স্মারকে ঘটনাটি আদালতে অবগত করেন। বিজ্ঞ আদালত গত ২০ সেপ্টেম্বর উক্ত মামলার প্রকৃত আসামি জাকির হোসেনের বিরুদ্ধে পুনরায় সাজা পরোয়ানা জারী করেন।
আজ বৃহস্পতিবার ২২ সেপ্টেম্বর বন্দর থানার সাব-ইন্সপেক্টর আব্দুল বারেক হাওলাদার তাকে গ্রেফতার করে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করেছেন। বিজ্ঞ আদালত আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর গাজী জাকির ও জেলে আটক জুয়েলকে আদালতে উপস্থিত হওয়ার নির্দেশ প্রদান করেন এবং উক্ত মামলার বিজ্ঞ আইনজীবী রেবেকা সুলতানাকে স্ব শরীরে আদালতে হাজির হয়ে কারণ দর্শানোর নির্দেশ প্রদান করেন।
এ ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ সদর কোর্ট পুলিশ পরিদর্শক আসাদুজ্জামান পিপিএম বলেন,প্রকৃত আসামি গ্রেফতার হওয়ায় আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।আশা করি ভবিষ্যতে এ ধরনের এহেন কর্মকান্ড করা থেকে বিচার প্রার্থীগণ বিরত থাকবেন।তিনি আদালতকে ভুল বুঝিয়ে এ ধরনের জঘন্য কর্মকান্ড করা থেকে বিরত থাকার জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানান।
অপরদিকে, জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দ্বিতীয় আদালতের বেঞ্চ সহকারী জহিরুল ইসলাম জানায়, আসামিগনের বিরুদ্ধে ২০৭, ২০৮ ও ৩৪ ধারায় নারায়ণগঞ্জ আদালতের দ্বিতীয় অঞ্চলে মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।অচিরেই তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এই বিভাগের আরও খবর


ফেসবুকে আমরা