September 16, 2021, 3:35 pm

নাসিক মেয়র প্রার্থী বাবুকে জয় বাংলা নাগরিক কমিটি পক্ষ থেকে ফুলেল অভ্যর্থনা

এস.কে মাসুদ রানাঝ-শহর রক্ষার আন্দোলন নিয়ে গঠিত জয় বাংলা নাগরিক কমিটি পক্ষ থেকে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মনোনীত মেয়র প্রার্থী বাবুকে ফুলেল অভ্যর্থনা দেওয়া হয়েছে। বুধবার(১সেপ্টেম্বর)দুপুর ১২টার দিকে নারায়ণগঞ্জের চাষাড়া চত্বরে জয় বাংলা নাগরিক কমিটি ও কামরুল ইসলাম বাবু সমর্থক গোষ্ঠী পক্ষ থেকে এ অভ্যর্থনা দেওয়া হয়।
উন্নয়ন, নাগরিক সেবা ও রাজস্ব আদায়— এই তিনটি মৌলিক শর্তের ওপর দাঁড়িয়ে ক্লিন ইমেজের বাবু অবশ্য জানান দিলেন, কেন এমন ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত হতে হচ্ছে ? সংবর্ধনা নয়, শুভেচ্ছা নয়, চলুন, কাল সূর্যোদয়ের পর হতে গণ সংযোগে নেমে পড়ি। আপনারা এখানে ভীড় জমালে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। এমন কৃষ্টি থেকে আমাদের বের হয়ে আসতে হবে। রাস্তা ব্লক করে আমরা কি নাগরিক অধিকার আদায়ে সঠিক কাজটা করছি ?
বুধবার সকাল হতেই চাষাড়া চত্বরে চারপাশ হতে জয় বাংলা নাগরিক কমিটির কর্মীরা জড়ো হতে থাকেন। রাজধানী ঢাকা থেকে কামরুল ইসলাম বাবুর নারায়ণগঞ্জ প্রত্যাবর্তনে অবশ্য রাজনৈতিক সমীকরণে তাঁর ভাল খবর রয়েছে, গেল ক’দিনে এমন কিছু চাউর ছিল।

বাবু এদিন তাঁর সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বলেন, আমাদের এখন বাড়িতে বাড়িতে যেতে হবে। ভোট চাইতে নয়। জয় বাংলা নাগরিক কমিটির রাখা সুপারিশ আমলে নিয়ে এই শহরের বাসিন্দাদের জন্য আমি কি করতে পারবো তা জানাতে হবে। ভোট চাইবার যোগ্যতা আছে কিনা আমাদের, সেটা নিয়েও ভাবতে হবে। নারায়ণগঞ্জ নিয়ে বিস্তর গবেষণা ও লেখপড়ার মধ্যে রয়েছি। শহরকে পাল্টে ফেলতে হবে। এই শহরকে হতে হবে এই বিশ্বের মধ্যেই এক আধুনিক শহর। যা করা ‘সম্ভব’।

বক্তব্যের শেষ দিকে তিনি জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু জয় শেখ হাসিনা উচ্চারণে থেকে জানিয়ে দেন, তিনি নাসিক নির্বাচনে প্রার্থী হচ্ছেন এবং ব্যতিক্রমি কিছু করেই মানুষের মন জয় করতে চান।
উল্লেখ্য, এই বছরের ২ জুন একটি সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে কামরুল ইসলাম বাবু প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়ে বলেন, “আমি আওয়ামী লীগের সদস্য নই। প্রাথমিক সদস্যও নই। এত বড় দলের সদস্য হওয়ার যোগ্যতা আমার নেই। যদি কখনো আমার প্রিয় দল মনে করে থাকে, বাবুকে দরকার, তখন নিজেই যোগ দেব। আমি নাসিক নির্বাচনের ট্রেনে উঠতে চাই। যেখানে আওয়ামী লীগের প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করতে হবে এমন নয়, তবে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ভর করে, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের চারটি মুলনীতির ওপর আজীবন আস্থা রেখে এবং একজন শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রতি অগাধ বিশ্বাস রেখে এমন পথচলায় আওয়ামী লীগের সমর্থন প্রত্যাশা করি।“বাবুর সেই পথচলা থেমে নেই। ধীরে ধীরে তাঁর জনপ্রিয়তা বাড়ছে এবং তিনি একের পর এক কর্মসূচী দিয়ে নগরবাসীকে জানাতে চেষ্টা করছেন, বাবু এক্সপ্রেস রওনা দিয়ে থামবে না। এদিন এই অভ্যর্থনা সভায় জয় বাংলা নাগরিক কমিটির যুগ্ম আহবায়ক সাংবাদিক এস এম আরজু, হুমায়ুন কবীর, মোস্তাক আহমেদ, সুলতানা শিউলি, খাজা মামুন, ইমরান মোহাম্মদ রোমান সহ বিপুল সংখ্যক নেতা কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

এই বিভাগের আরও খবর


ফেসবুকে আমরা