June 12, 2021, 6:46 pm

মতলবে প্রতিপক্ষের হামলায় গুরুতর আহত তিন!!হাসপাতালে ভর্তি

আব্দুল মান্নান খান, মতলব প্রতিনিধি :মতলব পৌরসভার মধ্য দিঘলদী গ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় এক নারীসহ তিন জন গুরুতর আহত হয়েছে। আহতরা মতলব দক্ষিণ উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স ও চাঁদপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। শুক্রবার (২১ মে) সকালে এই হামলার ঘটনা ঘটে।

হাসপাতাল ও সরজমিনে জানা যায়, ঘটনার কয়েকদিন আগে উঠতি বয়সী ছেলেদের আড্ডা দেওয়াকে কেন্দ্র করে পৌর এলাকার ৮ নং ওয়ার্ডের মিয়াজী বাড়ীর কবিরের সাথে ৯ নং ওয়ার্ডের লোকমান মিয়াজীর তর্ক হয়। সেই সময় লোকমান ক্ষিপ্ত হয়ে কবির মিয়াজী কে মারধর করে।

আর এই মারধর কে কেন্দ্র করে শুক্রবার (২১ মে) সকালে লোকমান মিয়াজী তার বাড়ির পাশে মাদ্রাসার সামনে এলাকার মৃত পন্ডিত আলীর বেপারীর ছেলে ইসমাই ও তার ভাই মিজান, সুমন , মৃত শহিদ মিজির ছেলে আনিছ ও তার ভাই মোকলেছ, হানিফা, আশ্রাফ আলীর ছেলে বাবু ও এমরান, বিল্লাল হোসেন ও তার ছেলে একই এলাকার মৃত আমির হোসেন মিয়াজীর ছেলে খোকনকে মারধর করতে থাকে। ওই সময় খোকনের ডাক চিৎকারে তার ভাই মিজানুর রহমান ও ভাবী কুলসুমা তাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে তারাও মারধরের শিকার হন। সেই সময় এলাকার আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা চলে যায়। পরে আহতদের উদ্ধার করে মতলব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে কর্মরত চিকিৎসক মিজানুর রহমানকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চাঁদপুর প্রেরণ করেন এবং খোকন ও কুলসুমাকে ভর্তি দেন ।

হামলায় আহত খোকন বলেন, আমার ভাতিজা কবিরের সাথে লোকমানের কথা কাটাকাটি হয় আর সেই সূত্র ধরেই তারা আমাকে একা পেয়ে মারধর করে। হামলার সময় আমাকে বাঁচাতে এসে ভাই-ভাবি তাদের হামলার শিকার হন।

হামলার বিষয়ে লোকমান মিয়াজী বলেন, তাদের সাথে তিন বছর ধরে জমি সংক্রান্ত মামলা চলছে। মিজানের ছেলে এলাকায় বাজে ছেলেদের নিয়ে আড্ডা দিতে নিষেধ করেছিলাম, কিন্তু তারা আমার কথা কর্ণপাত করেনি।

এদিকে হামলার ঘটনায় মতলব দক্ষিণ থানা পুলিশকে অবহিত করলে থানার এসআই হেলাল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং লোকমান মিয়াজীর পরিবারের পক্ষ থেকে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে বলে জানা যায়।

ক্যাপশন: হামলায় আহত কুলসুমা ও খোকন।

এই বিভাগের আরও খবর


ফেসবুকে আমরা