ঢাকা,বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০৬:৩৮ অপরাহ্ন ঢাকা,বুধবার, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০৮:০৩ অপরাহ্ন
ময়মনসিংহে প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত মৃৎ শিল্পীরা
     

শফিউর রহমান সেলিম,ময়মনসিংহ প্রতিনিধি : ময়মনসিংহ জেলার ১৩টি উপজেলায় হিন্দু সম্প্রদায়ের সর্ব বৃহৎ ধর্মীয় অনুষ্ঠান শারদীয় দুর্গোৎসব অনুষ্ঠিত হবে। আর এই উৎসবকে সামনে রেখে পূজা উদযাপনের প্রস্তুতি যেন পুরোদমে এগিয়ে চলছে।
আসন্ন দূর্গাপূজাকে সামনে রেখে ব্যস্ত সময় পার করছেন মৃৎ শিল্পী কারীগররা। আর সেই প্রতিমা শিল্পীরা সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত কাদা মাটি, খড়, কাঠ, বাঁশ, সুতলি দিয়ে প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। জানা গেছে মাটির কাজ শেষ হলেই শুরু হবে রং তুলির আঁচড়।
দেবী দূর্গা সহ প্রতিমাগুলো মনোমুগ্ধকর অনিন্দ্য সুন্দর রুপ দিতে ও নিখুঁতভাবে ফুটিয়ে তুলতে সর্বোচ্চ মনোযোগ দিয়ে কাজ করছেন এই শিল্পীরা।
জানা যায়, স্থানীয় মৃৎ শিল্পী ছাড়াও দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে কারিগররা ময়মমসিংহে এসে প্রতিমা তৈরির কাজ করছেন। দূর্গা ছাড়াও লক্ষী, স্বরস্বতী, কার্তিক, গনেশ, অসুর, সিংহ, মহিষ, পেঁচা, হাঁস, সর্পসহ প্রায় ১২ টি মূর্তি তৈরি হচ্ছে নিপূন হাতে।
ময়মনসিংহের ১৩টি উপজেলায় ৭৩০টি পূজামন্ডপে প্রতিমা তৈরি হচ্ছে। প্রতিটি মণ্ডপে প্রতিমা নির্মাণের পাশাপাশি চলছে সর্বজনীন স্থায়ী মন্দিরগুলোতে সাজসজ্জা ও অস্থায়ী মন্ডপগুলোতে চলছে সুদৃশ্য বিশাল প্যান্ডেল, তোরণ এবং বর্ণাঢ্য আলোকসজ্জার কাজ।
আগামী মঙ্গলবার (২৬ সেপ্টেম্বর) রাতে বেলতলায় ষষ্টী পূজার মধ্য দিয়ে শুরু হবে মুল দেবী বন্দনা।
এ অনুষ্ঠান চলবে ৫ দিন ব্যাপি অর্থাৎ শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) মহাদশমীর মধ্যদিয়ে শেষ হবে প্রতিমা বিষর্জন।
পূজা উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের ময়মনসিংহ জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক শ্রী শংকর সাহা জানিয়েছেন, এ বছর জেলার ১৩টি উপজেলায় সর্বমোট ৭৩০টি পূজা অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে নগরীতে ৫৪টি ও ৬৭৬টি পূজা বাকী ১২টি উপজেলা এবং ইউনিয়ন পর্যায়ের মন্ডপ গুলোতে উদযাপন হবে।
তিনি আরও জানান, বর্তমানে সকল পূজা উদযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দ ও সদস্যরা ব্যস্তসময় পার করছেন।
দূর্গা পূজা সার্বজনীনভাবে প্রতিবছর উদযাপিত হয়। হিন্দু, মুসলিম, খ্রিষ্টান, সব ধর্মের মানুষের অংশগ্রহনে মিলনমেলায় পরিণত হয়। সবাই সহযোগিতাও করেন। তাই প্রশাসনের সহায়তায় এবারের দূর্গাপূজাও সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্নভাবে উদযাপিত হবে বলে মনে করেন শংকর সাহা।
এ বিষয়ে ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম বলেন, জেলার সব কয়টি উপজেলায় শান্তিপূর্ণ পরিবেশে দুর্গা পূজা উৎযাপনের জন্য পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ নিরাপত্তার জন্য ব্যবস্থা নেয়া হবে।
ইতি মধ্যেই জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের পূজা উদযাপন কমিটি এবং প্রতিটি থানায় চিঠি পাঠানো হয়েছে। প্রতিমা তৈরী কালীন সময়ে যাতে প্রতিমার কোন প্রকার ক্ষতি না হয়। সেই জন্য আয়োজক কমিটিকে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। আয়োজক কমিটির পাশাপাশি পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে টহল টিম সতর্ক মাঠে কাজ করবে।
তিনি আরও বলেন, হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা যেন শান্তিপূর্ণ পরিবেশে তাদের ধর্মীয় উৎসব উদযাপন করতে পারেন। সে জন্য প্রয়োজনীয় সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। আশা করছি প্রতি বছরের মতো এবারও কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্য দিয়ে শারদীয় দুর্গোৎসব পালিত হবে বলেও জানান পুলিশ সুপার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *